৮০) সূরা আবাসা

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

১.
عَبَسَ وَتَوَلَّى

তিনি ভ্রূকুঞ্চিত করলেন এবং মুখ ফিরিয়ে নিলেন।

২.
أَن جَاءهُ الْأَعْمَى

(কারণ) তাঁর কাছে এক অন্ধ আগমন করল।

৩.
وَمَا يُدْرِيكَ لَعَلَّهُ يَزَّكَّى

(হে নবী!) আপনি কি জানেন, সে হয়তো পরিশুদ্ধ হত।

৪.
أَوْ يَذَّكَّرُ فَتَنفَعَهُ الذِّكْرَى

কিংবা উপদেশ গ্রহণ করতো এবং উপদেশ তার উপকার হত।

৫.
أَمَّا مَنِ اسْتَغْنَى

পরন্তু যে বেপরোয়া,

৬.
فَأَنتَ لَهُ تَصَدَّى

আপনি তার চিন্তায় মশগুল।

৭.
وَمَا عَلَيْكَ أَلَّا يَزَّكَّى

সে পরিশুদ্ধ না হলে আপনার কোন দোষ নেই।

৮.
وَأَمَّا مَن جَاءكَ يَسْعَى

পক্ষান্তরে যে আপনার কাছে ছুটে আসলো,

৯.
وَهُوَ يَخْشَى

এমতাবস্থায় যে, সে ভয় করে,

১০.
فَأَنتَ عَنْهُ تَلَهَّى

আপনি তাকে অবজ্ঞা করলেন।

১১.
كَلَّا إِنَّهَا تَذْكِرَةٌ

না, এটা মোটেই ঠিক না, এটা উপদেশবানী।

১২.
فَمَن شَاء ذَكَرَهُ

কাজেই যার ইচ্ছা এটি গ্রহণ করবে।

১৩.
فِي صُحُفٍ مُّكَرَّمَةٍ

(এটা লিখিত আছে) মর্যাদাসম্পন্ন কিতাবসমূহে,

১৪.
مَّرْفُوعَةٍ مُّطَهَّرَةٍ

সমুন্নত, পবিত্র।

১৫.
بِأَيْدِي سَفَرَةٍ

(এমন) লিপিকারের হস্তে,

১৬.
كِرَامٍ بَرَرَةٍ

(যারা) মহা সম্মানিত, পূত-পবিত্র।

১৭.
قُتِلَ الْإِنسَانُ مَا أَكْفَرَهُ

মানুষ ধ্বংস হোক, সে কত বড় সত্য অস্বীকারকারী!

১৮.
مِنْ أَيِّ شَيْءٍ خَلَقَهُ

আল্লাহ তাকে কোন বস্তু হতে সৃষ্টি করেছেন?

১৯.
مِن نُّطْفَةٍ خَلَقَهُ فَقَدَّرَهُ

শুক্রবিন্দু থেকে তাকে সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর তাকে সুপরিমিত করেছেন।

২০.
ثُمَّ السَّبِيلَ يَسَّرَهُ

অতঃপর তার পথ সহজ করেছেন,

২১.
ثُمَّ أَمَاتَهُ فَأَقْبَرَهُ

অতঃপর তার মৃত্যু ঘটান ও তাকে কবরস্থ করেন।

২২.
ثُمَّ إِذَا شَاء أَنشَرَهُ

অতঃপর যখন ইচ্ছা করবেন তখন তাকে পুনরুজ্জীবিত করবেন।

২৩.
كَلَّا لَمَّا يَقْضِ مَا أَمَرَهُ

কখখনো নয়, আল্লাহ‌ তাকে যে কর্তব্য পালন করার হুকুম দিয়েছিলেন তা সে পালন করেনি।

২৪.
فَلْيَنظُرِ الْإِنسَانُ إِلَى طَعَامِهِ

মানুষ তার খাদ্যের প্রতি লক্ষ্য করুক,

২৫.
أَنَّا صَبَبْنَا الْمَاء صَبًّا

আমি প্রচুর পানি বর্ষণ করেছি,

২৬.
ثُمَّ شَقَقْنَا الْأَرْضَ شَقًّا

তারপর আমি ভূমিকে বিদীর্ণ করেছি,

২৭.
فَأَنبَتْنَا فِيهَا حَبًّا

অতঃপর তাতে উৎপন্ন করেছি শস্য,

২৮.
وَعِنَبًا وَقَضْبًا

আঙ্গুর, শাক-সব্জি,

২৯.
وَزَيْتُونًا وَنَخْلًا

যয়তুন, খেজুর,

৩০.
وَحَدَائِقَ غُلْبًا

আর ঘন উদ্যান।

৩১.
وَفَاكِهَةً وَأَبًّا

নানা জাতের ফল ও ঘাস।

৩২.
مَّتَاعًا لَّكُمْ وَلِأَنْعَامِكُمْ

তোমাদের ও তোমাদের গৃহপালিত পশুর জীবন ধারণের সামগ্রী হিসেবে।

৩৩.
فَإِذَا جَاءتِ الصَّاخَّةُ

অতঃপর যেদিন কর্ণবিদারক নাদ আসবে,

৩৪.
يَوْمَ يَفِرُّ الْمَرْءُ مِنْ أَخِيهِ

সেদিন পলায়ন করবে মানুষ তার ভ্রাতার কাছ থেকে,

৩৫.
وَأُمِّهِ وَأَبِيهِ

তার মাতা, তার পিতা,

৩৬.
وَصَاحِبَتِهِ وَبَنِيهِ

তার স্ত্রী ও তার সন্তানদের কাছ থেকে।

৩৭.
لِكُلِّ امْرِئٍ مِّنْهُمْ يَوْمَئِذٍ شَأْنٌ يُغْنِيهِ

সেদিন তারা প্রত্যেকেই নিজেকে নিয়ে ব্যতিব্যস্ত থাকবে।

৩৮.
وُجُوهٌ يَوْمَئِذٍ مُّسْفِرَةٌ

সেদিন কতক মুখ হবে উজ্জ্বল,

৩৯.
ضَاحِكَةٌ مُّسْتَبْشِرَةٌ

সহাস্য ও প্রফুল্ল।

৪০.
وَوُجُوهٌ يَوْمَئِذٍ عَلَيْهَا غَبَرَةٌ

এবং সেদিন কতক মুখ হবে ধুলিমলিন।

৪১.
تَرْهَقُهَا قَتَرَةٌ

তাদেরকে কালিমা আচ্ছন্ন করে রাখবে।

৪২.
أُوْلَئِكَ هُمُ الْكَفَرَةُ الْفَجَرَةُ

তারাই কাফির, পাপাচারী।
"পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে। যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। আপনার পালনকর্তা অতি দয়ালু। নিশ্চয়ই আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।"