আল্লাহর উপদেশ: তোমরা সত্যকে মিথ্যার সাথে মিশ্রিত করো না এবং জানা সত্ত্বেও সত্যকে গোপন করো না



তোমরা সত্যকে মিথ্যার সাথে মিশিয়ে দিও না এবং জানা সত্ত্বে সত্যকে তোমরা গোপন করো না। -(সূরা বাকারাহ, আয়াত: ৪২)

উপরোক্ত আয়াতে ইহুদীদেরকে তাদের বদ অভ্যাসের জন্য তিরস্কার করা হয়েছে। কারণ তারা জানা সত্ত্বেও কখনো সত্য ও মিথ্যাকে গোপন করতো, আবার কখনো সত্যকে গোপন করতো এবং মিথ্যাকে প্রকাশ করতো। তাই তাদেরকে এ কুঅভ্যাস ত্যাগ করতে বলা হচ্ছে এবং উপদেশ দেয়া হচ্ছে যে, তারা যেন সত্যকে প্রকাশ করে ও স্পষ্টভাবে বর্ণনা করে।

অতঃপর তাদেরকে নির্দেশ দেয়া হচ্ছে যে, তারা যেন রসূল (সা) এর সাথে সালাত আদায় করে, যাকাত প্রদান করে, তাঁর উম্মাতের সাথে রূকু ও সাজদায় অংশগ্রহণ করতে থাকে। অর্থাৎ তারা নিজেরাও যেন তাঁরই উম্মাত হয়ে যায়। যেমনটি আল্লাহ্ তা'আলা বলেন-
আর সালাত কায়িম কর, যাকাত প্রদান কর এবং রুকুকারীদের সাথে রুকু করো। -(সূরা বাকারাহ, আয়াত: ৪৩)

'রুকুকারীদের সাথে রুকু করো' এর অর্থ এই যে, তারা যেন ভালো কাজে মুমিনদের সাথে অংশগ্রহণ করে। আর এ কাজগুলোর মধ্যে সালাতই উত্তম। এ আয়াত দ্বারা অধিকাংশ আলিম জামাতে সালাত আদায় ফরয হওয়ার দলীল গ্রহণ করেছেন।

তাফসীরে মা'আরিফুল কুরআনে বর্ণিত আছে, এ আয়াত (সূরা বাকারার ৪২ নং আয়াত) দ্বারা প্রমাণিত হয় যে শ্রোতা ও সম্বোধিত ব্যক্তিকে বিভ্রান্ত করার উদ্দেশ্যে সত্যকে মিথ্যার সাথে মিশ্রিত করে উপস্থাপন করা সম্পূর্ণ নাজায়েজ। অনুরূপভাবে কোন ভয় বা লোভের বশবর্তী হয়ে সত্য গোপন করাও হারাম।


তথ্যসূত্র:
  • তাফসীর ইবনে কাছীর
  • তাফসীরে মা'আরিফুল কুরআন

২টি মন্তব্য:

"পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে। যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। আপনার পালনকর্তা অতি দয়ালু। নিশ্চয়ই আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।"