৭৭) সূরা আল মুরসালাত

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

১.
وَالْمُرْسَلَاتِ عُرْفًا

পর পর প্রেরিত বায়ুর শপথ যা উপকার সাধন করে,

২.
فَالْعَاصِفَاتِ عَصْفًا

অতঃপর তা প্রচন্ড ঝড়ের বেগে বইতে থাকে,

৩.
وَالنَّاشِرَاتِ نَشْرًا

শপথ মেঘবিস্তৃতকারী বায়ুর,

৪.
فَالْفَارِقَاتِ فَرْقًا

আর বিচ্ছিন্নকারী বায়ুর শপথ যা (মেঘমালাকে) বিচ্ছিন্ন করে,

৫.
فَالْمُلْقِيَاتِ ذِكْرًا

শপথ তাদের যারা (মানুষের অন্তরে) উপদেশ পৌঁছে দেয় -

৬.
عُذْرًا أَوْ نُذْرًا

যা অনুশোচনা স্বরূপে বা সতর্কতা স্বরূপে।

৭.
إِنَّمَا تُوعَدُونَ لَوَاقِعٌ

নিশ্চয়ই তোমাদেরকে প্রদত্ত ওয়াদা বাস্তবায়িত হবে।

৮.
فَإِذَا النُّجُومُ طُمِسَتْ

অতঃপর যখন নক্ষত্ররাজির আলো নির্বাপিত হবে,

৯.
وَإِذَا السَّمَاء فُرِجَتْ

যখন আকাশ বিদীর্ণ হবে,

১০.
وَإِذَا الْجِبَالُ نُسِفَتْ

যখন পর্বতমালাকে উড়িয়ে দেয়া হবে এবং

১১.
وَإِذَا الرُّسُلُ أُقِّتَتْ

যখন রসূলগণের একত্রিত হওয়ার সময় নিরূপিত হবে,

১২.
لِأَيِّ يَوْمٍ أُجِّلَتْ

(এসব বিষয়) কোন দিবসের জন্যে স্থগিত রাখা হয়েছে?

১৩.
لِيَوْمِ الْفَصْلِ

বিচার দিবসের জন্য।

১৪.
وَمَا أَدْرَاكَ مَا يَوْمُ الْفَصْلِ

আপনি জানেন বিচার দিবস কি?

১৫.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

১৬.
أَلَمْ نُهْلِكِ الْأَوَّلِينَ

আমি কি পূর্ববর্তীদেরকে ধ্বংস করে দেইনি?

১৭.
ثُمَّ نُتْبِعُهُمُ الْآخِرِينَ

অতঃপর তাদের পশ্চাতে প্রেরণ করব পরবর্তীদেরকে।

১৮.
كَذَلِكَ نَفْعَلُ بِالْمُجْرِمِينَ

অপরাধীদের সাথে আমি এরূপই করে থাকি।

১৯.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

২০.
أَلَمْ نَخْلُقكُّم مِّن مَّاء مَّهِينٍ

আমি কি তোমাদেরকে নগণ্য পানি থেকে সৃষ্টি করিনি?

২১.
فَجَعَلْنَاهُ فِي قَرَارٍ مَّكِينٍ

অতঃপর আমি তা রেখেছি এক সুসংরক্ষিত স্থানে,

২২.
إِلَى قَدَرٍ مَّعْلُومٍ

একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত,

২৩.
فَقَدَرْنَا فَنِعْمَ الْقَادِرُونَ

অতঃপর আমি তাকে গঠন করেছি সুসমাঞ্জস্যরূপে, আমি কতই না উত্তম ক্ষমতার অধিকারী!

২৪.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

২৫.
أَلَمْ نَجْعَلِ الْأَرْضَ كِفَاتًا

আমি কি পৃথিবীকে সৃষ্টি করিনি ধারণকারিণীরূপে?

২৬.
أَحْيَاء وَأَمْوَاتًا

জীবিত ও মৃতদেরকে?

২৭.
وَجَعَلْنَا فِيهَا رَوَاسِيَ شَامِخَاتٍ وَأَسْقَيْنَاكُم مَّاء فُرَاتًا

আমি তাতে স্থাপন করেছি মজবুত সুউচ্চ পর্বতমালা এবং পান করিয়েছি তোমাদেরকে তৃষ্ণা নিবারণকারী সুপেয় পানি।

২৮.
وَيْلٌ يوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

২৯.
انطَلِقُوا إِلَى مَا كُنتُم بِهِ تُكَذِّبُونَ

চল তোমরা তারই দিকে, যাকে তোমরা মিথ্যা বলতে।

৩০.
انطَلِقُوا إِلَى ظِلٍّ ذِي ثَلَاثِ شُعَبٍ

চল সেই তিন কুন্ডলীবিশিষ্ট ছায়ার দিকে,

৩১.
لَا ظَلِيلٍ وَلَا يُغْنِي مِنَ اللَّهَبِ

যা শীতল নয় এবং অগ্নির উত্তাপ থেকে রক্ষা করে না।

৩২.
إِنَّهَا تَرْمِي بِشَرَرٍ كَالْقَصْرِ

এটা অট্টালিকা সদৃশ বৃহৎ স্ফুলিঙ্গ নিক্ষেপ করে।

৩৩.
كَأَنَّهُ جِمَالَتٌ صُفْرٌ

যেন সে পীতবর্ণ উষ্ট্রশ্রেণী।

৩৪.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

৩৫.
هَذَا يَوْمُ لَا يَنطِقُونَ

এটা এমন দিন, যেদিন কেউ কথা বলতে পারবে না।

৩৬.
وَلَا يُؤْذَنُ لَهُمْ فَيَعْتَذِرُونَ

তাদের কাউকে ওজর পেশ করারও অনুমতি দেয়া হবে না।

৩৭.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

৩৮.
هَذَا يَوْمُ الْفَصْلِ جَمَعْنَاكُمْ وَالْأَوَّلِينَ

এটা বিচার দিবস, আমি তোমাদেরকে এবং তোমাদের পূর্ববর্তীদেরকে একত্রিত করেছি।

৩৯.
فَإِن كَانَ لَكُمْ كَيْدٌ فَكِيدُونِ

এক্ষণে তোমাদের কোন কৌশল থাকলে তা প্রয়োগ কর আমার বিরুদ্ধে।

৪০.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

৪১.
إِنَّ الْمُتَّقِينَ فِي ظِلَالٍ وَعُيُونٍ

মুত্তাকীরা থাকবে ছায়ায় এবং প্রস্রবণসমূহে,

৪২.
وَفَوَاكِهَ مِمَّا يَشْتَهُونَ

আর তাদের জন্য থাকবে ফলমূল- যেটি তাদের মন চাইবে।

৪৩.
كُلُوا وَاشْرَبُوا هَنِيئًا بِمَا كُنتُمْ تَعْمَلُونَ

(বলা হবে) তোমরা যা করতে তার বিনিময়ে তৃপ্তির সাথে পানাহার কর।

৪৪.
إِنَّا كَذَلِكَ نَجْزِي الْمُحْسِنينَ

এভাবেই আমি সৎকর্মশীলদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।

৪৫.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

৪৬.
كُلُوا وَتَمَتَّعُوا قَلِيلًا إِنَّكُم مُّجْرِمُونَ

(কাফিরগণ) তোমরা কিছুদিন খেয়ে নাও এবং ভোগ করে নাও, তোমরা তো অপরাধী।

৪৭.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।

৪৮.
وَإِذَا قِيلَ لَهُمُ ارْكَعُوا لَا يَرْكَعُونَ

যখন তাদেরকে বলা হয়, নত হও, তখন তারা নত হয় না।

৪৯.
وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ সত্য প্রত্যাখ্যানকারীদের জন্য।।

৫০.
فَبِأَيِّ حَدِيثٍ بَعْدَهُ يُؤْمِنُونَ

তাহলে (কুরআনের পর) কোন কথায় তারা এরপর বিশ্বাস স্থাপন করবে?
"পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে। যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। আপনার পালনকর্তা অতি দয়ালু। নিশ্চয়ই আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।"