অহংকারের শেষসীমা


 
যারা আল্লাহর নিদর্শনাবলীকে অস্বীকার করে এবং পয়গম্বরগণকে হত্যা করে অন্যায়ভাবে, আর সেসব লোককে হত্যা করে যারা ন্যায়পরায়ণতার নির্দেশ দেয়, তাদেরকে বেদনাদায়ক শাস্তির সংবাদ দিন। -[সূরা আল ইমরান, আয়াত: ২১]

আল্লাহ্ সুবহানাহুয়া তাআ'লার নিয়ামতগুলো যেমন অফুরন্ত আনন্দের, তাঁর শাস্তিগুলোও অনেক কষ্টের। আর উপরের আয়াতে যে বেদনাদায়ক শাস্তির সংবাদ দেয়া হয়েছে তাও হবে অনেক কষ্টের।  আর এ শাস্তিটা হবে তাদের জন্য যারা আল্লাহর প্রিয় বান্দাদের বিরুদ্ধে শত্রুতা পোষণ করেছে এজন্যই যে তারা এক আল্লাহর মনোনীত দ্বীন ইসলামের দিকে মানুষকে আহ্বান করে, সত্যকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করে, মিথ্যাকে বয়কট করে, ভালো কাজের আদেশ দেয়, মন্দ কাজের নিষেধ করে। আর এতেই শয়তান তার সঙ্গীদের নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে শত্রুতা পোষণ করে এবং নানারকম মন্দ চক্রান্ত করে। এমনকি তাদেরকে হত্যাও করে। আর এগুলো তারা অহংকার বশত করে থাকে। যেমনটি রাসূল (সা) বলেন: 
সত্যকে অস্বীকার করা ও ন্যায়পন্থীদের লাঞ্ছিত করাই হচ্ছে অহংকারের শেষসীমা। -(মুসলিম: ১/৯৩)
আর যারা অহংকার বশত এই মন্দ কাজটি করে তাদের জন্যই আল্লাহ সুবহানাহুয়া তাআ'লা বেদনাদায়ক শাস্তির সংবাদ দিয়েছেন এবং আরো বলেছেন:  
এরাই হলো সে লোক যাদের সমগ্র আমল দুনিয়া ও আখেরাত উভয়লোকেই বিনষ্ট হয়ে গেছে। পক্ষান্তরে তাদের কোন সাহায্যকারীও নেই। -(সূরা আল ইমরান, আয়াত: ২২)

তথ্যসূত্র:
  • তাফসীর ইবনে কাছীর  

1 টি মন্তব্য:

"পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে। যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। আপনার পালনকর্তা অতি দয়ালু। নিশ্চয়ই আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।"