আল্লাহ যাদের অভিভাবক



"যারা ঈমান এনেছে, আল্লাহ তাদের অভিভাবক। তাদেরকে তিনি বের করে আনেন অন্ধকার থেকে আলোর দিকে। আর যারা কুফরী করে তাদের অভিভাবক হচ্ছে তাগুত। তারা তাদেরকে আলো থেকে বের করে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যায়। এরাই হলো দোযখের অধিবাসী, চিরকাল তারা সেখানেই থাকবে।" -(সূরা বাকারাহ, আয়াত: ২৫৭)

আল্লাহ্ তা'আলা এখানে সংবাদ দিচ্ছেন যে, যারা তাঁর সন্তুষ্টি কামনা করে তাদেরকে তিনি শান্তির পথ প্রদর্শন করবেন এবং শিরক, কুফর ও সন্দেহের অন্ধকার থেকে বের করে সত্যের আলোর দিকে নিয়ে আসেন। পক্ষান্তরে শয়তানেরা কাফিরদের অভিভাবক। তারা তাদেরকে অজ্ঞতা, ভ্রষ্টতা ও কুফরীতে নিমজ্জিত রাখে এবং সত্যের আলো হতে দূরে সরিয়ে অন্ধকারে নিক্ষেপ করে।

অন্য এক আয়াতে ইরশাদ করেছেন:
"তোমাদেরকে এ নির্দেশ দিয়েছেন, যেন তোমরা উপদেশ গ্রহণ কর। নিশ্চিত এটি আমার সরল পথ। অতএব, এ পথে চল এবং অন্যান্য পথে চলো না। তা হলে সেসব পথ তোমাদেরকে তাঁর পথ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিবে। তোমাদেরকে এ নির্দেশ দিয়েছেন, যাতে তোমরা সংযত হও।" (ক্বুরান, ৬: ১৫৩)

এরকম বহু আয়াত রয়েছে, এগুলো দ্বারা সাব্যস্ত হচ্ছে যে, সত্যের একটি পথ ও বাতিলের বিভিন্ন পথ রয়েছে।

হযরত আইয়ুব বিন খালিদ (রা) বলেন যে, ইচ্ছাপোষণকারীদের উঠানো হবে। অতঃপর যার কামনা কেবল ঈমানই হবে সে ঔজ্জ্বল্যপূর্ণ চেহারা বিশিষ্ট হবে, আর যার কুফরীর বাসনা হবে সে কৃষ্ণ ও কুৎসিত চেহারা বিশিষ্ট হবে।


তথ্যসূত্র: 
  • তাফসীর ইবনে কাছীর

0 comments:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

"পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে। যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। আপনার পালনকর্তা অতি দয়ালু। নিশ্চয়ই আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।"